Connect with us

অনলাইনে আয় করতে চান? আপনি পারবেন ৯৯৯৯%, ব্লগার মারুফ নিজেই গ্যারান্টি

ফ্রিল্যান্সিং

অনলাইনে আয় করতে চান? আপনি পারবেন ৯৯৯৯%, ব্লগার মারুফ নিজেই গ্যারান্টি

অনলাইনে আয় করতে চান? হ্যাঁ, করতে চাই। সবারই এই একই উত্তর। কেউ আবার আরও জোর দিয়ে হ্যাঁ শব্দটা বলে। কিন্তু, তাদেরকে যদি বলেন যে, অনলাইনে আয় করার জন্য আপনি অনলাইন বা কম্পিউটার বিষয়ক কি কাজ পারেন কিংবা আপনি কি কাজে দক্ষ? এখন তাঁরা নিশ্চুপ।

online earnঘটনাগুলো সম্পূর্ণ বাস্তব। আমি নিজেই প্রমাণ। হয়ত আপনিও এইসব উদাহরনের একজন সাক্ষী। আমি এই পোস্টটা করছি অনলাইনে আয় করার স্বরবর্ণ সম্পর্কে ধারণা দিতে। আর এসব ধারণা সব আমার নিজের অভিজ্ঞতা, গবেষণা, ধ্যান-ধারণা ও চিন্তা-ধারা থেকে লেখা। আমি এখানে আপনাকে অনলাইন আয়ের কোন উপায়ই বলে দিব না। তবে অনলাইন আয়ের সঠিক মানে শেখানোর চেষ্টা করব। আমি বরাবরই বেশিরভাগ লেখালেখি করি নবীনদেরকে জানাতে এবং শেখাতে। তাই আগেই বলে রাখছি, আজকের লেখাটাও নবীনদের জন্য। পাশাপাশি আরও এক শ্রেণীর জন্য লিখলাম। যারা অনলাইন আয়কে জাদুর প্রদীপ ভাবেন কিংবা অনলাইনে ফাও ফাও টাকা/ডলার/ইউরো ঘুরে বেড়ায় এমনটা ভাবেন এই পোস্টটা মূলত তাদের উদ্দেশ্য করেই লেখা।

আমার বিশ্বাস আমরা ৯০% লোক সবাই জানি যে, আয় কি জিনিস? তবে বাকি ১০% যদিও জানে তবে তাঁরা ভুল জানে। তাদের জন্য আমার পক্ষ থেকে তৈরি আয়ের সংজ্ঞা বলে রাখছি। আয় হল এমন একটা পদ্ধতি যেটার মাধ্যমে আপনি যেকোন প্রকার পরিশ্রম (কায়িক/মানসিক) দ্বারা মানুষের নিকট সেবা বা পণ্য দ্রব্য সরবরাহের মাধ্যমে অর্থ গ্রহন করেন। তাহলে উদাহরন হিসেবে দাঁড়ায়, “একজন আমের  দোকানদার আম টাকা দিয়ে কিনে কিছু লাভ করে মানুষের নিকট বিক্রি করে। এর জন্য তাকে আর্থিক বিনিয়োগ করতে হয়েছে, সারাদিন পরিশ্রম করে আম বিক্রি করে লাভ হিসেবে টাকা পেয়েছে। এটাই তাঁর আয়। আবার একজন রিকশাওয়ালার কথা ধরুন, তিনি সারাদিন মাথার ঘাম পায়ে ফেলে মানুষকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যায় বিনিময়ে তিনি টাকা পান। যা তাঁর আয়।” এসব কথা শুনে আমাকে অনেকে পাগল ভেবে বসেছেন। হয়ত বলছেন, “অনলাইন আয়ের জগতে রিকশাওয়ালা কিংবা আমের দোকানদার আসল কেন?” হ্যাঁ, উত্তর দিচ্ছি। আমি এগুলোকে উদাহরন হিসেবে দিয়েছি। আগেই বলেছি, অনলাইনে অনেকের কাছে আয় জিনিসটা অন্য ধরনের এক ব্যাপার। তাদের জন্যই এই ধরনের উদাহরন দিতে বাধ্য হচ্ছি।

উদাহরনের উপরে ঔষধ নাই আপাতত। আরও একটা উদাহরন দেই। আমার এক বন্ধু এবং আমার কথোপকথনের সংক্ষিপ্ত অংশ পড়ুনঃ
আমার বন্ধুঃ দোস্ত, সারাদিন তো অনলাইনে বসে ফেসবুক ঘুতাই। কিছু ইনকামের ব্যবস্থা করে দে তো…
আমিঃ হুম, দোস্ত। কম্পিউটারে কি কাজ পারিস বল। আমি সেই ধরনের কাজ খুঁজে তোকে ইনশাল্লাহ দিব।
আমার বন্ধুঃ আরেহ দোস্ত, কি কাজ করতে হবে সেইটা বল।
(আমিতো এই কথা শুনে অর্ধেক হাবাগোবা হয়ে গেছি। দোস্ত আমার বলে কি! ওয় হয়ত অনেক কিছুই শিখে ফেলেছে।)
আমিঃ আরেহ তুই বল, তুই যে কাজ পারিস সেটা বল। আমি কাজ খুঁজে দেখব। যেমনঃ ফটোশপ, ব্লগিং, ওয়েব ডিজাইন, সোশ্যাল মার্কেটিং ইত্যাদি ইত্যাদি।
আমার বন্ধুঃ তুই যে কাজ খুঁজে পাবি আমাকে সেইটা দেখায় দিলেই আমি পারব। শুধু দেখায় দিবি যে, কিভাবে কাজ করব।
*** আমি ব্যাপক মেজাস খারাপ করলাম আমার বন্ধুর উপর। ওকে আর কিছুই বলিনি। তবে শুধু বলেছিলাম, “দোস্ত, ইনকাম জিনিসটাকে আসলে তুই কি ভাবিস? আর অনলাইনে টাকা তোর হাতে বিনা ঘামে হাতে আসবে এইটা তোকে কে বলেছে? তাহলে একবার বুঝে নিন এখনও মানুষ অনলাইন আয়কে কি সংজ্ঞায় বুঝে! অনেকের কাছে অনলাইন মানে হল এমন এক জাদুর বাক্স যেখানে টাকা শুধু ধরে ধরে পকেটে রাখতে হয়। কথাটা ঠিক কিন্তু এখানে শর্ত প্রযোজ্য। কেউ যদি ওইরকম ধারণায় থেকে থাকেন তিনি নিজেকে একবার প্রশ্ন করে দেখুন তো যে, আপনাকে যে ওই বিনা শ্রমের টাকাটা দিবে সে কি পাগল? সেও তো আপনার মতই একজন মানুষ। আরেকটা প্রশ্ন নিজেকে করুন। এখন পর্যন্ত আপনি এমন কোন কি কাজ দেখেছেন যেটার মাধ্যমে বিনা শ্রমে টাকা আপনাকে কেউ পকেটে ঢুকায় দিয়ে যাবে?”***
এখন এতক্ষণ পর আসল কথায় আসি, অনলাইন আয় কোন জাদুর বাক্সও নয়, কোন জাদুর মন্ত্রও নয়। এটি এমন একটা জগত যেখানে কম্পিউটার এবং অনলাইন বিষয়ক কাজের সংখ্যা বা ক্ষেত্র বেশি। আমার মতে, অনলাইন আয়কে এর বেশি ভাবার কোন প্রয়োজন নেই। বাস্তব জীবনে আপনি যতটা না কাজ পাবেন অনলাইন জগতে আপনি তার থেকে অধিক পরিমানে কাজ এবং কাজের ক্ষেত্র খুঁজে পাবেন। আবারো উদাহরন প্রয়োজন। ধরুন, “আপনি ওয়েব ডিজাইন জানেন (দক্ষতার সহিত জানেন) এবং আপনি রংপুরে থাকেন। তাহলে ব্যাপার কি দাঁড়াল? আপনার এই মূল্যবান দক্ষতা এবং জ্ঞান থাকা সত্ত্বেও আপনি খুব কম পরিমানই কাজ বা সেটার মুল্য পাবেন রংপুরে। কিন্তু, অনলাইন হল সেই জগত যেখানে আপনার মূল্যবান সেই দক্ষতার প্রকাশ ঘটানোর প্লাটফর্ম। যেখানে আপনি দক্ষতার বহিঃপ্রকাশের সাথে সাথে আরও পাবেন অধিক পরিমান আয়ের সীমাহীন সুযোগ। কারন অনলাইন মানে শুধু আপনার দেশ নয়। অনলাইন মানে পুরো পৃথিবীর এক নতুন জগত। কর্মক্ষেত্রটার ব্যাপ্তি সীমাহীন। তাই এখানে আপনার কম্পিউটার সম্পর্কিত দক্ষতা মেলে ধরে আয়ের সীমা পেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ অসীম। মনে রাখবেন আয় মানে সমপরিমাণ জিনিসের আদান প্রদান। ধরুন, আপনি ওয়েব ডিজাইনিং জ্ঞানের মাধ্যমে একটি ওয়েব সাইট বানিয়ে দিলেন। এর বিনিময়ে গ্রাহক চুক্তি অনুযায়ী আপনাকে টাকা পরিশোধ করল। সাধারন দৃষ্টিতে এটাই তো অনলাইন আয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে, “আমাদের অনেকেই এখনও অনলাইন আয় মানে বুঝে যে, একটা ক্লিক করলাম আর ডলার আমার ব্যাংকে এসে পড়ল।”
সবশেষে অসমাপ্তভাবে শেষ করতে চাই। আমি বার বার একটি কথা বলছি। আর তা হল, “কম্পিউটার বা অনলাইনে আপনি যে কাজটা দক্ষতার সাথে পারার যোগ্যতা রাখেন সেই কাজটা দ্বারা আপনি অনলাইনে আয় করবেন করবেন করবেন ১০০০০% করবেন।”
বয়স মাত্র ১৬, এখন না শেয়ার করলে কখন? এই ছোট মাথায় আউলা ঝাউলা ভাবে খোলামেলা কথায়, আলাপচরিতায় আমার দৃষ্টিকোণে অনলাইন আয়ের সংজ্ঞা বুঝাতে চেয়েছি। কতটুকু পেরেছি তা জানিনা। তবে চেষ্টা করে গেছি আপনাদেরকে আমার মতামত বুঝাতে। অবশ্যই আপনাদের মতামতের অপেক্ষায় রইলাম। সকল ভুলত্রুটির জন্য হাত জোর করে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। ধন্যবাদ… – ব্লগার মারুফ
[[ বিঃদ্রঃ বারবার বলছি, লেখাটি ব্লগার মারুফের ছোট মাথার নিজস্ব চিন্তা-ধারায় লেখা। সুতরাং, যেকোনো ভুল করে থাকলে ক্ষমা করে দিবেন। আর লেখাটি এখানে প্রথম প্রকাশিত। লেখাটি যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে বিনীত আবেদন করছি যে, লেখাটি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করবেননা। প্রকাশের পূর্বে দয়া করে অনুমতি নিবেন। ]]]

 

Continue Reading

আমি মারুফ, রংপুরে থাকি। এখন কারমাইকেল কলেজে একাদশ শ্রেণীর বাণিজ্য বিভাগে পড়াশুনা করছি। পড়াশুনার পাশাপাশি একটি সংবাদপত্রে শিশু সাংবাদিক হিসেবে কাজ করছি। আর ব্লগিং পেশাটা হল শখের। শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী হওয়ায় আমি বাহিরে ঘুড়ে বেড়াতে অক্ষম। তাই কম্পিউটারে বসেই লেখালেখি আর পড়াশুনা করতেই সবসময় ব্যস্ত থাকি। ৩ বছর থেকে এতদিন ব্লগ পড়তাম। এখন ব্লগ লিখতে শুরু করেছি। ও! আরেকটি কথা, ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপিং শিখছি একটি প্রতিষ্ঠান থেকে। ব্লগ, ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করেই যাচ্ছি। টেকনলোজি, শিশু-কিশোরদের নিয়ে লিখতে বেশি ভালোবাসি। সবশেষে বলব, আমি একজন ক্ষুদে ব্লগার। আমার একটি ব্যক্তিগত ভার্চুয়াল ডায়েরী আছে। ভিজিট করুন ঃ- www.bloggermaruf.blogspot.com

2 Comments

2 Comments

  1. সমীর

    14 January, 2014 at 9:39 pm

    মারুফ ভাই দারুন পোষ্ট চালিয়ে যান। তোমার মতো যে কবে হতে পারব……..ধন্যবাদ

  2. তাপস

    15 January, 2014 at 9:58 pm

    খুবই অনূপেরনা-মূলক ও সময়উপযোগী পোস্ট। চালিয়ে যান ভাই সাথে আছি। নির্বাচিত পোস্টের জন্য ভোট করলাম।

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More in ফ্রিল্যান্সিং

Advertisement

বিভাগ সমূহ

টেক-বেঙ্গল পোল

"বাঙালীরা এখনো তথ্য প্রযুক্তি -তে পিছিয়ে" আপনি কি মনে করেন ?

View Results

Loading ... Loading ...

সেরা টেক বাঙালী

To Top