Connect with us

সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্মঃ ট্রেডিং এর নতুন দিগন্ত

ফ্রিল্যান্সিং

সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্মঃ ট্রেডিং এর নতুন দিগন্ত

বর্তমান ফিন্যান্সিয়াল মার্কেটে একটি বহুল আলোচিত বিষয় হচ্ছে সোশ্যাল ট্রেডিং। ট্রেডারদের এক বিশাল নেটওয়ার্ক যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ট্রেডাররা একে অপরের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষার পাশাপাশি নিজেদের ট্রেডিং আইডিয়া, স্ট্রাটেজি ও নলেজ শেয়ারের মাধ্যমে পরস্পরের উপকারে আসছেন, তাকেই বলা হচ্ছে সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম। এখানে যেমন নিজের ও অন্য ট্রেডারদের স্ট্রাটেজির তুলনামূলক বিশ্লেষণ করা যাচ্ছে ঠিক তেমনি একজন পছন্দের ট্রেডারের স্ট্রাটেজি কপি করা যাচ্ছে মাউসের জাস্ট একটা ক্লিকের মাধ্যমে!

আপনি কি জানেন সোশ্যাল ট্রেডিং কাকে বলে?

 

ট্রেডিং করে লাভবান হওয়ার জন্য আপনাকে এক্সপার্ট ট্রেডার হতে হবে- এই ধারনা এখন আর ঠিক নয়। ট্রেডিং অথবা ইনভেস্ট করার ক্ষেত্রে সোশ্যাল ট্রেডিং এখন একটি যুগান্তকারী উপায়। বিশেষ করে আপনি যদি স্টক কিংবা ফরেক্স মার্কেটে নতুন হন, তাহলে এটা হতে পারে আপনার জন্য সবচেয়ে উপকারী প্লাটফর্ম। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের ট্রেডারদের একত্রিতকরনের মাধ্যমে এখানে সৃষ্টি হয় একটা বিশাল কমিউনিটি। প্রত্যেক ট্রেডারের জন্য সোশ্যাল ট্রেডিং থেকে লাভবান হওয়ার প্রচুর সুযোগ রয়েছে।

সোশ্যাল ট্রেডিং আপনাকে প্রফেশনাল ট্রেডার না হয়েও ট্রেডিং থেকে লাভবান হওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে। আপনি নিজে এক্সপার্ট হওয়ার বদলে অন্যান্য এক্সপার্ট ট্রেডারদের অনুসরন করে লাভবান হতে পারবেন। এখানে আপনি খুব সহজে নিজের একাউন্টের সাথে এক্সপার্ট ট্রেডারদের একাউন্ট কানেক্ট করতে পারছেন, ফলে অটোমেটিক্যালি তাদের ট্রেডিং স্ট্রাটেজি আপনি কপি করতে পারবেন। একই ভাবে সোশ্যাল ট্রেডিং এক্সপার্ট ট্রেডারদের জন্য খুলে দিয়েছে দ্বিগুণ প্রফিট অর্জনের সুযোগ। আপনার ফলোয়ার যত বেশি বৃদ্ধি পাবে, তত বেশি মুনাফা অর্জন সম্ভব হবে।

সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম কীভাবে কাজ করে?

 

একটি সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম মূলত তিনটি বিশেষ ফিচারের সাহায্যে কাজ করেঃ

১. দেখুনঃ

একটি সোশ্যাল ইনভেস্টমেন্ট নেটওয়ার্ক এর সবচেয়ে বেসিক ফাংশন হচ্ছে- এটি সকল ট্রেডারের ট্রেডিং একটিভিটির লাইভ ফিড দেখায়। তারমানে এই মুহূর্তে অন্যান্য ট্রেডাররা কি করছেন তা আপনি সরাসরি দেখার সুযোগ পাচ্ছেন। কিন্তু আপনার মনে নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগছে- এ থেকে আপনি কি সুবিধা পাবেন?

খুব সহজ!

বর্তমান যুগে ইনফরমেশনকে বলা চলে শক্তির বিশাল উৎস। অন্যান্য ট্রেডাররা কি করছেন এ বিষয়ে তথ্য আপনাকে মার্কেটের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে সম্যক ধারনা অর্জন করতে সাহায্য করবে। তাছাড়া আপনি বেশ কিছু অভিনব ট্রেডিং স্ট্রাটেজি ও আইডিয়া শিখার সুযোগ পাচ্ছেন।

২. অনুসরন করুনঃ

আপনি হয়ত সম্পূর্ণ মার্কেটের অবস্থা জানার চেয়ে নির্দিষ্ট কিছু টপ ট্রেডারদের একটিভিটি অনুসরন করতে বেশি আগ্রহী হবেন। আপনি জাস্ট ফলো অপশন ব্যবহার করে যেকোনো পছন্দের ট্রেডার এর ট্রেডিং একটিভিটিগুলোর ট্র্যাক রাখতে পারবেন। পছন্দের ট্রেডারকে খুঁজে বের করার জন্য আপনার জন্য থাকছে নানা রকম সুযোগ সুবিধা। প্লাটফর্ম এর এনালাইজ অপশন ব্যবহার করে আপনি টপ ট্রেডারদের ট্রেডিং স্ট্রাটেজির মধ্যে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করতে পারবেন। তাছাড়া সার্চ বা ইনভেস্টর ফাইন্ডার অপশন আপনাকে পছন্দের ক্রাইটেরিয়া অনুযায়ী ট্রেডারকে খুঁজে নিতে সাহায্য করবে।

৩. কপি করুনঃ

একটি সোশ্যাল ট্রেডিং নেটওয়ার্ক থেকে বেনেফিটেড হওয়ার সবচেয়ে ডিরেক্ট উপায় হচ্ছে কপি করা। আপনি আপনার পছন্দের টিপ ট্রেডারদের স্ট্রাটেজি মাউসের একটা ক্লিকের মাধ্যমে কপি করে নিয়ে সেই পদ্ধতি ব্যবহার করে নিজেও লাভবান হতে পারছেন। আপনি আপনার সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্মের লাইভ ফিডে যদি দেখতে পান কোন পারটিকুলার ট্রেডার বা ইনভেস্টর তার ট্রেডিং এ বেশ ভাল করছেন, তাহলে সাথে সাথে তার বর্তমান স্ট্রাটেজি কপি করে নিয়ে নিজের কাজে লাগাতে পারছেন। কিন্তু একটা কপি ট্রেডিং এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে- আপনি আপনার ফান্ডের উপর আপনার সম্পূর্ণ কন্ট্রোল বজায় থাকবে। আপনি যেকোনো সময় আপনার কপি একটিভিটিকে স্টপ রাখতে পারেন আবার চালু করতে পারেন। তাছাড়া অন্য ট্রেডারের ট্রেড ফলো করলেও নিজের মতমত করে স্টপ লস, টেক প্রফিট সেট করে নেয়ার সুযোগ থাকছে।

সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্মে কি কি বাড়তি সুবিধা পেতে পারেন?

 

ফিন্যান্সিয়াল মার্কেটের দুনিয়ায় সোশ্যাল ট্রেডিং সৃষ্টি করতে যাচ্ছে এক নতুন যুগ। ট্রাডিশনাল ট্রেডিং এর তুলনায় সোশ্যাল ট্রেডিং অনেক বেশি কার্যকর। এখানে ছোট ট্রেডাররাও স্বল্প জ্ঞান নিয়ে ট্রেডিং করার মাধ্যমে লাভবান হওয়ার উপায় খুঁজে পাচ্ছেন। এখানে একজন ট্রেডার যেসকল সুবিধা অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছে তা হলঃ

  • এক্সপার্ট ট্রেডারদের জন্য ফলোয়ার বাড়ানোর মাধ্যমে এক্সট্রা মুনাফা অর্জন করা যাবে।
  • ট্রেডারদের মধ্যে পারস্পারিক যোগাযোগ স্থাপন করা যাবে।
  • ট্রেডারদের একে অন্যকে অনুসরন করার সুযোগ রয়েছে।
  • ছোট বাজেট নিয়ে লাভজনক বিজনেস শুরু করার সুযোগ আছে।
  • ডেমো একাউন্ট দিয়ে আনলিমিটেড ট্রেড প্র্যাকটিস করার সুযোগ রয়েছে।
  • এক্সট্রা কোন পারফরমেন্স ফি দিতে হবেনা।
  • ট্রেডিং এ আপনার অনেক সময় বাঁচাবে।
  • যেকোনো সময় তারল্য সুবিধা অনেক বেশি থাকবে।
  • সোশ্যাল ইন্টারফেসটি ব্যবহার করা অনেক সহজ হবে।
  • আন্তর্জাতিক মার্কেটে এক্সেস সহজ হবে।

একটা সাধারণ সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম কীভাবে ব্যবহার করবেন?

স্টেপ-১

  • আপনার পছন্দের সোশ্যাল ট্রেডিং সাইটটি নির্বাচন করুন।
  • পছন্দের সাইটে সাইন আপ করুন
  • ফর্ম ফিল আপ অন্যান্য ফর্মালিটিস মেইনটেইন করে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন
  • প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস দ্বারা একাউন্ট ভ্যারিফাই করুন
  • একাউন্টে ডিপোজিট করুন

স্টেপ-২

  • টপ ট্রেডার, ফান্ড ম্যানেজার বা সিগন্যাল প্রোভাইডারকে খুঁজে বের করুন।(কাজটা একদম সহজ, সাধারণত সাইটের হোমপেইজে টপ ট্রেডারদের লিস্ট ডিসপ্লে করা হয়ে থাকে)
  • টপ ট্রেডারদের প্রফিট এবং লস এর গ্রাফ কম্পেয়ার করুন।
  • এক বা একাধিক পছন্দের ট্রেডার, ফান্ড ম্যানেজার বা সিগন্যাল প্রোভাইডারকে বেছে নিন।

স্টেপ-৩

  • আপনার পছন্দের ট্রেডারকে কপি করুন (এই ক্ষেত্রে ট্রেডার যেসব সিদ্ধান্ত নেবে, আপনার সিদ্ধান্তগুলোও ঠিক তেমন হবে), পছন্দের ফান্ড ম্যানেজারের একাউন্টে বিনিয়োগ করুন কিংবা পছন্দের সিগন্যাল প্রোভাইডার এর দেয়া সিগন্যাল ফলো করুন।

স্টেপ-৪

  • চুপ চাপ রিল্যাক্স মুডে বসে থাকুন এবং দেখুন কি করে এক্সপার্ট ট্রেডার আপনার হয়ে প্রফিট করছেন বা ফান্ড ম্যানেজার আপনার বিনিয়োগকৃত অর্থ বৃদ্ধি করে চলেছে কিংবা সিগন্যাল প্রোভাইডার এর দেয়া সিগন্যাল অনুযায়ী নিজে ট্রেড করুন।
  • আপনার রিস্ক কন্ট্রোলে রাখুন।( অন্য ট্রেডারকে ফলো করার সময়ও আপনি চাইলে নিজের স্টপ লস, টেক প্রফিট, মানি ম্যানেজমেন্ট, ভলিউম সহ সব কিছু নিজের আয়ত্তে রাখতে পারছেন। অর্থাৎ কাউকে আপনার অন্ধের মত ফলো করতে হচ্ছেনা।)

কীভাবে ভাল সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম চিনব?

 

ফিন্যানশিয়াল মার্কেটে সোশ্যাল ট্রেডিং সম্পূর্ণ নতুন একটা কনসেপ্ট। কিন্তু এটা হতে যাচ্ছে ট্রেডারদের জন্য সবচেয়ে বেশি লাভজনক প্লাটফর্ম। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ট্রেডারদের একটি বিশাল নেটওয়ার্কের আওতায় একত্রিত করে সোশ্যাল ট্রেডিং এর ট্রেডারদের একে অপরের দক্ষতা ব্যবহার করে লাভবান হওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে। সব ধরনের ট্রেডারদের জ্ঞান ও দক্ষতার সমন্বয়ে তৈরি করা সম্ভব একটি সম্মিলিত ট্রেডিং পদ্ধতি যা সকল ট্রেডারকে লাভের মুখ দেখানোর জন্য যথেষ্ট।

বর্তমানে বেশ কিছু ভাল ভাল সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। এদের মধ্যে মাস্টারফরেক্স ব্রোকারের নাম সবচেয়ে বেশি আলোচিত। সম্প্রতি তারা MFX 2.0 চালু করার মাধ্যমে নিজেদের সাইটটিকে সোশ্যাল ট্রেডিং এর উপযোগী করে ঢেকে সাজিয়েছে যা অন্যান্য সোশ্যাল ট্রেডিং সাইট থেকে অনেক বেশি ইউজার ফ্রেন্ডলি।

একটি ভাল সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম এর মূল ফাংশনগুলো হলঃ

১. সার্চঃ

আপনি হাজার হাজার ট্রেডারদের ভিড়ে টপ ট্রেডারদের খুঁজে বের করার সুযোগ পাচ্ছেন।

২. এনালাইজঃ

টেডিং কমিউনিটির হাজার হাজার ট্রেডারদের সবার ট্রেডিং স্ট্রাটেজি এনালাইজ করে দেখতে পারবেন।

৩. ফলো এবং কপিঃ

আপনি টপ ট্রেডারদের ফলো করতে পারছেন এবং তাদের ট্রেডিং স্ট্রাটেজি কপি করে নিজে ট্রেড করতে পারছেন।

৪. প্রফিটঃ

আপনার পছন্দের ট্রেডার অথবা টপ ট্রেডারদের ফলো করার মাধ্যমে নিজেও প্রফিট করতে পারেন। একটা উইন-উইন সিচুয়েশন সৃষ্টি হয়।

কিছু ভাল সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্মঃ

 

ট্রেডাররা সব সময় ভাল সোশ্যাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম খোঁজেন। তাই একটি আদর্শ ট্রেডিং প্লাটফর্ম এর সব বৈশিষ্ট্য মিলে যায় এমন ব্রোকারের সাথে কাজ করতে তারা আগ্রহী হয়। এই ক্ষেত্রে সব দিক বিবেচনায় MFX Broker সহ আরও বেশ কিছু Broker হাউজের নাম টপ লিস্টে উঠে এসেছে। এরা ক্লায়েন্ট এবং পার্টনারদের জন্য সর্বচ্চ সুবিধা নিশ্চিত করতে বদ্ধ পরিকর।

বিশেষ করে MFX Broker এর সোশ্যাল ট্রেডিং উপযোগী এডভান্সড টেকনোলোজি ট্রেডারদেরকে একে অপরের সাথে সহজে যোগাযোগ স্থাপনের সুযোগ করে দিচ্ছে। এই বিশাল ফরেক্স কমিউনিটির অংশ হওয়ার মাধ্যমে একজন ট্রেডার নিজের সফলতার জোরে হয়ে উঠতে পারেন ট্রেডারদের লিডার, ট্রেডিং এক্সপার্ট কিংবা একজন ভাল ম্যানেজার। এর ফলে তিনি সাধারণ ট্রেডারদের মধ্যে সুনাম করার পাশাপাশি প্রচুর মুনফা অর্জন করতে সমর্থ হবেন।

ভাল একটি সোশ্যাল ট্রেডিং থেকে কি সব ধরনের ট্রেডাররা সুবিধা পাবে?

 

বিগিনার লেভেলের ট্রেডার এবং এক্সপার্ট ট্রেডার- উভয়ের পক্ষেই সোশ্যাল ট্রেডিং বেশ সুবিধাজনক। একজন ট্রেডার হিসেবে আপনি যতই অভিজ্ঞ হয়ে থাকুন না কেন অন্য ট্রেডারদের সাথে যোগাযোগ রাখার মাধ্যমে আপনার অভিজ্ঞতা আরও সমৃদ্ধ করার সুযোগ থেকেই যায়। আর যদি বিগিনার লেভেলের ট্রেডার হয়ে থাকেন, তাহলে তো আপনার জন্য সোশ্যাল ট্রেডিং এর কোন বিকল্প নেই!

বিগিনার ট্রেডারদের জন্য কেন এটি দরকার?

১. পপুলার ট্রেডারকে দেখে শিখতে পারছেন। তার ট্রেডিং স্ট্রাটেজি ফলো করতে পারছেন এবং সে অনুযায়ী ট্রেড করতে পারছেন।

২. যেকোনো ট্রেডারদের অনগোয়িং পারফরমেন্স মনিটর করতে পারছেন।

৩. অন্য ট্রেডারদের সাথে যোগাযোগ করার ফলে ভিবিন্ন বিষয়ে টিপস ও পরামর্শ নিতে পারছেন।

অভিজ্ঞ ট্রেডারদের জন্য কেন এটি দরকার?

১. ফলোয়ার বাড়ানোর মাধ্যমে নিজের পপুলারিটি বৃদ্ধি করার সুযোগ পাচ্ছেন যা আপনাকে এক্সট্রা প্রফিট অর্জনের সুযোগ করে দিচ্ছে। কারন যত বেশি ট্রেডার আপনাকে ফলো করবে, প্লাটফর্ম থেকে আপনি তত বেশি কমিশন পাবেন।

২. ট্রেডার এক্টিভিটি দেখে নিয়ে মার্কেট এর অবস্থান সম্পর্কে ভালভাবে অবগত হওয়ার সুযোগ পাবেন।

৩. পপুলার ইনভেস্টর দের সাথে যোগ দেয়ার মাধ্যমে নিজের স্ট্রাটেজি আরও সমৃদ্ধ করে নেয়া যাচ্ছে।

৪. নিজের ট্রেডিং আইডিয়া, একটিভিটি ও স্ট্রাটেজি নিজের পার্সোনাল ব্লগে লিখে রাখার পাশাপাশি অন্যদের সাথে শেয়ার করতে পারছেন।

ভাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম কি কি ইউনিক সুবিধা দিচ্ছে?

 

উপরিউক্ত সুবিধাগুলো প্রায় সব সোশ্যাল নেটয়ারকিং প্লাটফর্ম ব্যবহার করছে। এবার আসুন MFX Broker সহ অন্যান্য কিছু এর কিছু ভাল ট্রেডিং প্লাটফর্ম এর ইউনিক কিছু ফিচার দেখে নেয়া যাকঃ

লিডার রেটিংসঃ

সেরা ট্রেডার, সেরা PAMM ম্যানেজার অথবা বেস্ট সিগন্যাল প্রভাইডার হওয়ার মাধ্যমে একজন ট্রেডার চলে আসতে পারেন ব্রোকারের এর টপ রেটিংস লিস্টে যেখানে সমস্ত ট্রেডিং কমিউনিটি আপনার সাকসেস সম্পর্কে জানবে। যার ফলে তিনি অল্প সময়ের মাঝেই পেয়ে যাবেন অসংখ্য ফলোয়ার যারা তাকে লিডার হিসেবে মানবে।

টুর্নামেন্টে অংশগ্রহনঃ

নতুন MFX 2.0 সাইট সহ ভাল ভাল কিছু প্লাটফর্ম এ থাকছে নানা রকম ট্রেডিং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনের সুযোগ। বিভিন্ন টার্মস এবং কন্ডিশন বিচার করে একজন ট্রেডার খুঁজে নিতে পারেন তার জন্য উপযোগী টুর্নামেন্টটি। প্রত্যেকটি টুর্নামেন্টের থাকছে আলাদা শিডিউল। এখানে একজন ট্রেডার নিজের ট্রেডিং স্ট্রাটেজিকে সবচেয়ে লাভজনক প্রমান করে জিতে নিতে পারেন টুর্নামেন্টের জয়ের মুকুট।

বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনাঃ

MFX ফাইন্যান্সিয়াল কোম্পানিতে আছেন অনেক অভিজ্ঞ মানি ম্যানেজার এবং ফান্ড ম্যানেজার যারা ওয়ার্ল্ড এর নামকরা সব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফাইন্যান্সের বিষয়ে ডিগ্রিধারী। কীভাবে স্টক এবং কারেন্সি মার্কেট থেকে প্রফিট করা যায় সে সম্পর্কে তাদের সম্যক ধারনা আছে। এখানে আপনার জন্য নিজে কোন প্রকার ঝুঁকি না নিয়েও ঐ সকল ফান্ড ম্যানেজারদের মাধ্যমে নিজের ফান্ড ম্যানেজ করে অনেক লাভবান হওয়ার সুযোগ রয়েছে। বিগত বছরগুলোর ইতিহাস অনুযায়ী কখনও কখনও এই সকল ফান্ড ম্যানেজাররা ৬০% পর্যন্ত বাৎসরিক প্রফিটও করেছেন। যেহেতু আমাদের এই প্লাটফর্মে অনেক বিনিয়োগকারী আছেন, তাই ফান্ড ম্যানেজাররা সহজেই সকল ফান্ড একত্রে ম্যানেজ করতে পারছেন।

পার্সোনাল ক্যাবিনেটঃ

এ সকল পার্সোনাল ক্যাবিনেট হচ্ছে একদম ঝামেলামুক্ত ও ইউজার ফ্রেন্ডলি। এখানে বিভিন্ন WIDGETS এর সাহায্য নতুন একাউন্ট খোলা, ডিপোজিট করা, বোনাস পাওয়া, বিনিয়োগ কিংবা কোন টুর্নামেন্টে অংশগ্রহন করতে পারছেন কেবলমাত্র মাউসের একটা ক্লিকের মাধ্যমে।

পার্সোনাল ব্লগঃ

MFX 2.0 তে একজন ট্রেডার নিজের ট্রেডিং লাইফের বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য দিকগুলি একটা পার্সোনাল ব্লগে লিখে রাখার সুযোগ পাচ্ছেন।এভাবে নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে লব্ধ জ্ঞান আপনি মানুষের সাথে শেয়ার করতে পারছেন, পাশাপাশি পাচ্ছেন অন্যের জ্ঞান কাজে লাগিয়ে নিজের ট্রেডিং লাইফকে আরও সমৃদ্ধ করার সুযোগ।

সোশ্যাল ট্রেডিং এর নতুন দিগন্ত উন্মোচনঃ চালু হল MFX 2.0

 

২০০৬ সাল থেকে কার্যক্রম শুরু করা MFX Broker এর স্লোগান হচ্ছে- ইওর পার্সোনাল ব্রোকার। সেই পার্সোনাল ব্রোকার নিজেদের আরও পার্সোনালাইজড করতে নিয়ে এল অভিনব এক ট্রেডিং প্লাটফর্ম MFX 2.0। দীর্ঘদিন যাবত MFX Broker এর এই নতুন রুপে পরিবর্তন হওয়ার কথা চলছিল, অবশেষে সেই প্রতীক্ষার অবসান হল। বর্তমানে MFX Broker এর সকল ক্লায়েন্ট ও পার্টনারদের জন্য এই MFX 2.0 ইউনিক ওয়েবসাইটটি এভাইলেবল আছে।

MFX Broker ফাইন্যান্সিয়াল কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ইগর ভলকোভ সব সময় ট্রেডারদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির কথা মাথায় রেখে যেকোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। MFX 2.0 এর চালু হওয়া প্রসঙ্গে এক প্রেস ব্রিফিং এ তিনি বলেছেন, “আজ, নতুন বছরের শুরুতে, আমাদের কোম্পানি ট্রাডিশানাল ট্রেডিং সিস্টেম থেকে বেরিয়ে এসে ট্রেডিং এর এক নতুন যুগ সৃষ্টিতে অগ্রগণ্য ভুমিকা রাখতে চলেছে। MFX 2.0 হচ্ছে ট্রেডিং ও কমিউনিকেশন এর সমন্বয়ে সৃষ্ট দারুন এক সোশ্যাল সিস্টেম যা আমাদের MFX Broker টিম এর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল। এখানে ট্রেডাররা একে অপরের ট্রেডিং দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর মাধ্যমে একটি সমবার ভিত্তিক বিজনেস এনভাইরনমেন্ট সৃষ্টি করতে সক্ষম হবে, যার ফলে এই ট্রেডিং কমিউনিটির সব পারটিসিপেন্টরা সন্দেহাতীতভাবে লাভবান হবেন”।

সুতরাং, আর দেরি কেন? MFX Broker আপনাকে আমন্ত্রন জানাচ্ছে সোশ্যাল টেডিং এর এক নতুন ভুবনে।

MFX Broker সব সময় চায় সাধারণ মানুষের চাহিদা অনুযায়ী নিজেদের সাজিয়ে নিতে। তাই MFX 2.0 সাইটটিকে কীভাবে আরও উন্নত করা যায় সে বিষয়ে আপনার ভাবনা গুলো জানাতে অথবা নতুন এই সাইট এবং এর সার্ভিস সম্পর্কে যেকোনো প্রশ্ন করার জন্য মেইল করতে পারেনঃ support@mfxbroker.com এ।

অথবা চাইলে আপনি কোম্পানির রিপ্রেজেন্টেটিভ এর সাথে যেকোনো প্রাসঙ্গিক বিষয়ে লাইভ চ্যাট করতে পারেনঃ Live-chat

Continue Reading

নাম মীর আযহার আলি। পেশায় একজন ফিন্যান্সিয়াল অ্যানালিস্ট। পাশাপাশি অর্থনীতি, বিনিয়োগ ও অন্যান্য বিষয়ে ব্লগে লেখালেখি করছেন। সাম্প্রতিক বিশ্বে ঘটে যাওয়া প্রত্যেকটি বিষয়ে তিনি আপডেট থাকতে পছন্দ করেন। তার বিভিন্ন লেখাগুলো পড়ার জন্য ঘুরে আসতে পারেনঃ http://www.forexing24.com/bangla/ ব্লগ থেকে।

Click to comment

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More in ফ্রিল্যান্সিং

Advertisement

বিভাগ সমূহ

টেক-বেঙ্গল পোল

"বাঙালীরা এখনো তথ্য প্রযুক্তি -তে পিছিয়ে" আপনি কি মনে করেন ?

View Results

Loading ... Loading ...

সেরা টেক বাঙালী

To Top